protidwondi

সুনীলের ‘প্রতিদ্বন্দ্বী’ ও সত্যজিতের ‘প্রতিদ্বন্দ্বী’ ; অভিযোজনের তুলনামূলক বিশ্লেষণ

সুনীলের রচনায় সত্যজিতের নির্মাণ, ‘প্রতিদ্বন্দ্বী’ দুই ক্ষণজন্মা মানুষকে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে একসারিতে। পূর্বের আলোচনায় আমরা উপন্যাস এবং চলচ্চিত্রের অভিযোজন, তুলনামূলক নানান বিষয় তুলে ধরেছি। এবারে একটু ভিন্নভাবে কিছু বিষয় আলোকপাত করছি। সত্যজিৎ রায়ের নির্মাণ কুশলতা কিংবা চিত্রায়ণ ও সৃষ্টিশীলতা নিয়ে কোন সংকোচ কিংবা দ্বিধার অবকাশ নেই। অপরদিকে সুনীলের গ্রহণযোগ্যতা কিংবা.

নাটিকা: শান্তি ও যুদ্ধের মধ্যে কথোপকথন

চরিত্র সমুহঃ  শান্তি, যুদ্ধ, দর্শক [একজন শান্তির চরিত্রে অভিনয় করবে। আরেকজনকে দেখা যাবে যুদ্ধের চরিত্রে। মঞ্চের পেছন থেকে প্রথমে নেপথ্য শব্দআবহ ভেসে আসবে। সম্ভব হলে আলো-আধারির পরিবেশ তৈরী করা হবে। দুটি চরিত্র মঞ্চের দুইপাশে নিজেদের দরকার অনুসারে স্থান পাল্টে সংলাপ চালিয়ে যাবে। কিছুটা নাটকীয় ঢং ও আওয়াজে কথা হবে। ].

বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে জনসংযোগ ও বিজ্ঞাপন

জনসংযোগ ও বিজ্ঞাপনের বাংলাদেশ প্রেক্ষিত নিয়ে সংক্ষেপে আলোকপাত করার অভিপ্রায় থেকে এই রচনাটি।  বাংলাদেশের বিজ্ঞাপন বলতে আমরা প্রধানত ঢাকার বিজ্ঞাপনকেই বুঝি। প্রথম থেকেই ঢাকাকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত হয়েছে ও হচ্ছে বাংলাদেশের ব্যাবসার একটি বৃহৎ অংশ। ৬০ এর দশকে ঢাকাকেন্দ্রিক বিজ্ঞাপন সময়ের শুরু হয়। আমরা কিছু বিখ্যাত বিজ্ঞাপন নিয়ে কথা বলার.

গেরুয়া; এই গ্রাম ছেড়ে তোমরা কোথায় যেতে চাও?

“সুবর্ণ গ্রাম, গিয়েছ কি? তবে একবার ঘুরে দেখে এসো..” – আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ সুবর্ণগ্রামে কাজল রেখার বাড়ি। আমার শৈশবও কেটেছে এখানেই। সত্যিকার অর্থে সুবর্ণগ্রাম নামের কোন গ্রাম নিয়ে আমি লিখছি না। বাংলাদেশের অসংখ্য গ্রামের একই রূপ রঙ ঘ্রাণ। বাতাসে ভেসে বেড়ানো খাঁটি ও সত্যিকারের জীবনের তীব্রতা সবখানেই সমানভাবে বয়ে যায়।.

বিজ্ঞাপনে সেমিওটিকস; ১ টি বিজ্ঞাপন বিশ্লেষণ

বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে সেমিওটিকস বিষয়টির শুরুতে কিছু বিষয় লক্ষ্য করলে আলোচনাটি সার্থক রূপ লাভ করবে। তাই পাঠকের মনোযোগ আকর্ষণ করছি। প্রসঙ্গত একটি প্রাচীন লাতিন প্রবাদ উল্লেখ করে নিচ্ছি। ‘Rem tene, verba sequenteur’ অর্থাৎ বিষয়ের সঙ্গে থাকো, ভাষা আপনাতেই আসবে। বিশ্লেষণের জন্য আমি বেছে নিয়েছি গ্রামীণফোনের থ্রি জি ইন্টারনেট সম্পর্কিত একটি বিজ্ঞাপন।.

স্পোর্টস, মিডিয়া, বিজনেস ও বাংলাদেশ

স্পোর্টস, মিডিয়া, বিজনেস ও কলোনিয়াল হ্যাংওভারের ভাবনা

খেলাধুলার প্রধান উদ্দেশ্য আনন্দ দেওয়া। প্রাথমিক পর্যায়ে খেলা বলতে শুধু নির্মল বিনোদনকে বুঝাতো। কিন্তু, সময়ের সাথে সাথে পাল্টে গেছে খেলাধুলা বিষয়ক প্রাসঙ্গিকতার আকার আকৃতি ও ধরণ। পেশাদারিত্বের ম্যাজিকে এই বিনোদন মাধ্যমটি হয়ে উঠেছে একইসাথে ব্যবসার অন্যতম বৃহৎ অনুষঙ্গ। মিডিয়া ও সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তিগত সংযোজন এনেছে বহুমাত্রিক ভিন্নতা। ফুটবলে বার্সেলোনা, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড,.